মুমিনুলের ওয়ানডেতে ১৩৩ বলে ১৮২

২০১৫ সালেরপর ওয়ানডেদলে সুযোগ নাপাওয়া মুমিনুল হক আয়ারল্যান্ডে‌‘এ’ দলের হয়ে সিরিজের চতুর্থ একদিনের ম্যাচে ১৩৩ বলে ১৮২রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেছেন। ২৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় তিনি এ রানকরেন। প্রথমেব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৮৫ রান তুলেছে বাংলাদেশ‘এ’

মুমিনুল হককে টেস্ট খেলোয়াড় বানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। ৬ বছরেরক্যারিয়ারে ওয়ানডে খেলেছেন ২৬টি। আর ৫বছরে টেস্টখেলেছেন ২৯টি। অথচসুযোগ পেলেই জানান দিয়েছেন, যে খেলতে পারে, সব সংস্করণেই পারে। এমনকি বিপিএলেও হেসেছে তাঁর ব্যাট। আজ আরও একবার সুযোগ পেতেইঝলসে উঠলেন। তাতেই পুড়ে গেলেন আইরিশ বোলাররা।

স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলের বিপক্ষে আজ ১৩৩ বলে১৮২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেছেন বাংলাদেশ ‘এ’ দলের অধিনায়ক। ইনিংসে ২৭টি চার, ছয় আছে ৩টি। ৪ উইকেট হারিয়ে ৩৮৫ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

৩৮৬ রানেরকঠিন লক্ষ্যটা আয়ারল্যান্ড ‘এ’ পেরিয়ে যেতে পারবে কি?না পারলে সিরিজে ২-১-এ এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। পাঁচ ম্যাচসিরিজের প্রথমটি বৃষ্টিতে ভেসে যায়। এর পর দুই দলএকটি করে ম্যাচ জিতেছে। বাংলাদেশের সামনে শুধুসিরিজে এগিয়ে যাওয়া নয়; সিরিজ না-হারাওনিশ্চিত করার সুযোগ।

এমন ম্যাচে সামনে থেকেনেতৃত্ব দিলেনস্বয়ং অধিনায়ক। তৃতীয় ওভারে নেমে দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের শিকার হয়েছেন ৪৫তমওভারে। অন্যথায় ডাবল সেঞ্চুরি হয়তো হয়েই যেত।না হলেও ১৮২ রানের ইনিংসটি স্বীকৃত লিস্ট–এ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যেদ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস। সর্বোচ্চ ১৯০রান আছে রকিবুল ইসলামের।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খেয়েছিল বাংলাদেশ। তৃতীয় ওভারেই দলীয় ৬ রানেআউট হন মিজানুররহমান (৪)। এর পরে ওয়ান ডাউনে নেমে অন্য ওপেনার জাকির হোসেনের সঙ্গে ২১০ রানের জুটি গড়েন মুমিনুল। ৩৪তম ওভারের প্রথম বলে ব্যক্তিগত ৭৯ রানে জাকিরফিরে যান।কিন্তু তাতেও মুমিনুলের ঝড়থামেনি। তৃতীয়উইকেট জুটিতে মোহাম্মদ মিথুনের সঙ্গে ১১২ রানের জুটি গড়েন। মিথুন ৫১ বলে ৮৬ রানে অপরাজিত ছিলেন।

৩৯ বলে ফিফটি করা মুমিনুলসেঞ্চুরি করেছেন ৮১ বলে। শুরুথেকেই বেশ মেজাজে ছিলেনবোঝা যায়। এর মধ্যে ৪২তম ওভারের চতুর্থ বলে একদিনের ম্যাচে নিজের ক্যারিয়ার-সেরা স্কোর নতুন করে লেখান। এরআগে মুমিনুলের সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল ১৫১রানের।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে অবশ্য কোনোসেঞ্চুরি নেই। সর্বোচ্চ৬০ রানের ইনিংস আছে একটা।

এ ছাড়া আর ফিফটি করেছেনই মাত্র দুবার।২৩.৬০ গড়। তবুনির্বাচকেরা দায় এড়াতে পারবেন না। ওয়ানডেতে নিয়মিত ধারাবাহিক সুযোগ যে পাননি, ওয়ানডের চেয়ে ৩টি টেস্টবেশি খেলাসেটাই বলছে।

জাতীয় দলেযখন তরুণ ক্রিকেটারদের ব্যাট সেভাবে হাসছেনা, মুমিনুল তখন নির্বাচকদের একটা বিকল্প এনে দিতে পারেন।

শেয়ার করুণঃ

shares