জামিন পেলেন বেগম জিয়া।

মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর অবদান ও শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়ার মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট।মঙ্গলবার (১৪ আগস্ট) বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি কাশেফা হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। ২০১৬ সালের ৫ জানুয়ারি ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (সিএমএম) মামলাটি করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী।মামলায় বলা হয়, ২০১৫ সালের ২১ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন তিনি। তার ওই বক্তব্য পরদিন বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। যেহেতু ওই বক্তব্য বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের নিয়ে কটাক্ষ করে ও স্বাধীনতা যুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর অবদান এবং ভূমিকাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে, যা দণ্ডবিধি ৫০০ ধারার অপরাধ।মামলাটিতে গত ৭ আগস্ট খালেদা জিয়ার আবেদন নামঞ্জুর করেছিলেন বিচারিক আদালত। আদেশে আদালত বলেছেন, আসামির বিরুদ্ধে পরোয়ানা পেন্ডিং আছে। তিনি এখনো এ মামলায় গ্রেফতার হননি। এ কারণে খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত। পরে হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়া।যুদ্ধকালীন শহীদদের সংখ্যা ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে নড়াইলে করা আরেকটি মানহানি মামলায় গতকাল হাইকোর্ট থেকে ছয় মাসের জামিন পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

শেয়ার করুণঃ

shares