“অাসুন নিজেকে ভালোবাসি।”

  • নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কোকিলের ছানা কাকের বাসায় বেড়ে ওঠে,কিন্তু তাই বলে সে কাক হয়ে যায় না,বড় হয়ে কোকিলই হয়।ঝরনার পাশ থেকে তুলে এনে গোলাপের চারা ছাইগাদায় পুঁতলে এতে গোলাপ ফুলই ফুঁটবে।
  • মাঝেমধ্যে আমরা নিজেকে নিয়ে,নিজেদের বর্তমান অবস্থানকে নিয়ে হতাশার সাগরে ডুবে যায়।এর একটাই কারন আমরা নিজেকে ভালোবাসি না..!ভালোবাসি না নিজের পরিচয়কে।যদি ইকবাল বাহার ভাই থেকে ধার করে বলি তাহলে বলতে হয়.. “যে নিজেকে ভালোবাসে তার দ্বারা কোন খারাপ কাজ সম্ভব না।নিজেকে ভালোবাসার প্রথম পরিচয় হচ্ছে নিজের নামকে ভালোবাসা,নিজের পরিচয়কে ভালোবাসা,নিজের কাজকে ভালোবাসা।”
  • যারা নিজের ইচ্ছাটাকে সম্মান করেছেন তারাই আজ সম্মানিত।আমরা অনেকেই কর্নেল হারল্যান্ড স্যান্ডার্সের নাম শুনেছি।যিনি ১৯৩২ সালে কেএফসির রেসিপি আবিষ্কার করেন।তিনি আজ বিখ্যাত তার রেসিপির জন্য।কিন্তু তার খ্যাতি একদিনে আসেনি।তিনি ১০০৯ বার প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর তিনি প্রথম হ্যাঁ শুনেন।আট বছর পর ৬০০ রেস্তোরা তাঁর রেসিপি চালু করেন।তিনি যদি তাঁর ইচ্ছাটাকে ধরে না রাখতেন,নিজের মতামতকে প্রাধাণ্য না দিতেন অথাৎ নিজেকে না’ই’ ভালোবাসতেন তাহলে আজ তিনি কখনোই এত বিখ্যাত হতেন না।এমন অনেক ভুরি ভুরি উদাহারন আছে যারা নিজের ইচ্ছাটাকে প্রাধান্য দিয়ে সফলতার শীর্ষে আরোহন করছে।তাদের মধ্যে জেফ বেজোস,স্যামুয়েল বেকট,জ্যাক মা অন্যতম।
  • একজন স্বাধীন মানুষের দু’রকমের সম্পত্তি থাকে।নিজের শরীর আর তার জমি।আমরা যদি নিজের শরীরটাকে ভালোবাসি অথাৎ নিজের ইচ্ছাটাকে স্বপ্নে রূপান্তর করে বাস্তবায়নের জন্য দৃঢ় প্রত্যয়েরর সাথে  কাজ করি, তাহলে হতাশা নামক শব্দটি নিজেই হতাশ হয়ে যাবে।কেননা পরিশ্রম কখনো বৃথা যায় না।আর আমরা যদি জীবনকে কিছু দেই তাহলে জীবন একদিন তা দ্বিগুন করে ফিরিয়ে দিবে নিশ্চিত।তাই আর নহে ভাগ্যকে দোষারোপ, নহে নিজের পরিবেশকে দোষারোপ।এখন থেকে শুরু হোক নিজেকে ভালোবাসা এবং বেঁচে থাকার মটো হোক….
  •  “আমি কখনো হারিনি,
  • হয় জিতেছি না হয় শিখেছি।”

শেয়ার করুণঃ

shares